২০৩০ সালের আগেই কুষ্ঠ রোগ মুক্ত হবে: প্রধানমন্ত্রী

২০৩০ সালের আগেই কুষ্ঠ রোগ মুক্ত হবে: প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: কুষ্ঠ রোগীদের অবহেলা না করে সু-চিকিৎসার ব্যবস্থা করার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আজ সকালে রাজধানীর সোনারগাঁও হোটেলে জিরো লেপ্রসি ইনিসিয়েটিভ টোয়েন্টি থাট্রি শিরোণামে জাতীয় সম্মেলনের উদ্বোধন অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন তিনি। এই চিকিৎসার ওষুধ দেশীয় কোম্পানিকে উৎপাদন এবং বিনামুল্যে বিতরণের আহ্বানও জানান প্রধানমন্ত্রী।

এক সময় কুষ্ঠ রোগ আতংকের নাম হলেও, আধুনিক চিকিৎসায় এখন নিরাময় যোগ্য। তবে ঠিক সময়ে এ রোগের চিকিৎসা না নিলে পঙ্গুত্ব অবধারিত। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের হিসেব বলছে বাংলাদেশে এখন কুষ্ঠ রোগীর সংখ্যা ৩২৪০ জন। তবে ২০৩০ সালের মধ্যে এই সংখ্যা শূন্যের কোটায় নামিয়ে আনতে চায় সরকার। তার অংশ হিসেবেই জাতীয় সম্মেলনের আয়োজন।

শেখ হাসিনা বলেন, কুষ্ঠরোগীদের অবহেলা নয় সঠিক চিকিৎসার মাধ্যমে সুস্থ করে তুলতে হবে। এছাড়া এই রোগ সম্পর্কে সামাজিক সচেতনতা বৃদ্ধি করতে হবে।

কুষ্ঠ রোগে আক্রান্তদের মানবিকভাবে দেখার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন তাদেরকে সামাজিকভাবে সহাবস্থানের ব্যবস্থা করতে হবে। কুষ্ঠ রোগের জন্য যে ওষুধ প্রয়োজন তা দেশীয় ওষুধ কোম্পানিগুলোকে উৎপাদন এবং বিনামূল্যে বিতরণেরও আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। ২০৩০ সালের আগেই কুষ্ঠ রোগ মুক্ত হবে দেশ, অনুষ্ঠানে এমন আশা প্রকাশ করেন প্রধানমন্ত্রী।