পেঁয়াজের ঝাঁজে সারবে লিভারের যেসব রোগ

পেঁয়াজের ঝাঁজে সারবে লিভারের যেসব রোগ

সোনার বাংলা ডেস্ক: লিভার বা যকৃতের সুস্থতা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। লিভার সিরোসিস ও লিভার ক্যান্সার এখনও মরণঘাতী অসুখ। আর এর চিকিৎসা ব্যয় বহন করতে উচ্চবিত্তরাও হিমশিম খায়। আর এ দুই মরণঘাতী ব্যাধির জন্য অন্যতম দায়ী ফ্যাটি লিভার। লিভারে চর্বি জমতে থাকা মানেই বড় ধরনের দুর্ঘটনার দিকে এগোচ্ছেন।

কিন্তু সেদিকে ভোজনরসিকদের কোনো খেয়ালই নেই। মাত্রাতিরিক্ত তৈলাক্ত ও ঝাল-মসলাযুক্ত খাবারে বেশ আগ্রহী বাংলাদেশিরা। আর এমন তেল-মসলায় জর্জরিত খাবার সিরোসিস অফ লিভারের সম্ভাবনা বাড়িয়ে দেয়। তা ছাড়া বাংলাদেশে ডায়াবেটিস যেভাবে মহামারী রূপ নিচ্ছে, সেখানে অনেকেরই ফ্যাটি লিভার সমস্যায় ভুগতে পারেন। ডায়াবেটিসে আক্রান্তরা নিয়মতান্ত্রিক ভাবে না চললেই লিভারে ফ্যাট জমবে। এমনটিই জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

তা হলে লিভারে যেন চর্বি না জমে সে ক্ষেত্রে অনেক কিছুই করণীয় বলেছেন চিকিৎসরা। সেসব করণীয় সময়ের অভাবে অনেকেরই করা হয় না। তাই চিকিৎসকরা বলছেন, প্রতিদিন একটি করে কাঁচা পেঁয়াজ খেলেই লিভার থাকবে সুস্থ। লিভার থেকে চর্বির জম পেঁয়াজের ঝাঁজ। একাধিক গবেষণায় প্রমাণিত, পেঁয়াজে আছে এমন কিছু উপাদান, যা একাধিক রোগের চিকিত্সায় বিশেষ ভূমিকা পালন করে।

পুষ্টিবিদদের মতে, পেঁয়াজের রসে আছে বেশ কিছু উপাদান, যা রক্তে শর্করার মাত্রা বাড়তে দেয় না। ইনসুলিনের ঘাটতি যাতে দেখা না দেয়, সেদিকেও খেয়াল রাখে। একই কথা বলেছেন চিকিৎসকরা। টাইপ-২ ডায়াবেটিস এবং ওবেসিটি প্রতিরোধ করে পেঁয়াজ। কিন্তু প্রতিদিন গড়ে একটি করে কাঁচা পেঁয়াজ খেলে লিভারের রস লিভার থেকে টক্সিন বের করে দেয়।

পুষ্টিবিদরা আরও বলেন, পেঁয়াজে রয়েছে প্রচুর কায়ারসেটিন, যা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায়, ব্লাড প্রেশার নিয়ন্ত্রণে রাখে। আর এই কায়ারসেটিনই লিভারের ফ্যাট কমায় বলে গবেষণায় প্রমাণিত। এ ছাড়া লিভারে ক্যান্সার কোষের বৃদ্ধি আটকায় পেঁয়াজের ঝাঁজ। হার্টের কর্মক্ষমতা বাড়িয়ে ব্যক্তিকে চাঙ্গা করে, কর্মদক্ষতা বাড়ায়। এ ছাড়া নিয়মিত কাঁচা পেঁয়াজ খেলে ভালো ঘুম হয়। যারা ইনসমনিয়ায় ভুগছেন তাদের জন্য পেঁয়াজ টনিকের মতো কাজ করে। এ ছাড়া স্মৃতিশক্তির উন্নতি ঘটানোসহ ঠাণ্ডা-কাশির প্রকোপ কমায় এই কাঁচা পেঁয়াজ।