তিতানের স্বপ্ন পূরণ

তিতানের স্বপ্ন পূরণ

বিনোদন প্রতিবেদক: চট্টগ্রামের মেয়ে তিতান চৌধুরী বেশ কয়েকবছর ধরেই অভিনয়ে নিয়মিত। গুনী নির্মাতাদের নাটকে অভিনয় করে অভিনয়ের জন্য প্রশংসিতও হয়েছেন তিনি। সাম্প্রতিক সময়ে তার আলোচিত নাটকের মধ্যে ইমরাউল রাফাতের ‘রূপসজ্জা’ নাটকটিতে অভিনয়ের জন্য বেশ প্রশংসিত হন তিতান চৌধুরী। এই নাটকে ব্যতিক্রমধর্মী একটি চরিত্রে অভিনয়ের জন্য পরিচালক রাফাতই চ্যালেঞ্জ হিসেবে তিতানকে নিয়ে অভিনয় করেছিলেন। একই পরিচালকের ‘হ্যাসট্যাগ’ নাটকে অভিনয়ের জন্যও প্রশংসিত হয়েছেন তিনি। ইয়ামিন ইলানের ‘ভুল প্রতিদান’ নাটকেও অনবদ্য অভিনয়ের জন্য প্রশংসিত হয়েছিলেন। অভিনয়ের পাশাপাশি ছুটি পেলেই তিতান ছুটে যেতেন গ্রামের বাড়ি চট্টগ্রামে। আবার শুটিং থাকলে ফিরে আসতেন ঢাকায়। পড়াশুনাটাও ঢাকাতেই চালিয়ে যেতেন নিয়মিত। তবে এবার একটি অন্যরকম স্বপ্ন পূরণ হলো তার। তিতানের ইচ্ছে ছিলো নিজের পছন্দমতো একটি চাকুরী করার। গেলো ১০ অক্টোবর তিতানের সেই স্বপ্ন পূরণ হলো। রাজধানীর বনানীতে অবস্থিত ‘ডেকো গ্রুপ অব বাংলাদেশ’-এ একজন এক্সিকিউটিভ হিসেবে চাকুরী শুরু করেছেন। চাকরীতে যোগ দিয়েই নিজের জীবনের প্রথম চাকুরীর খবরটি ফেসবুকে জানান দেবার পর অনেকেই তাকে সাধুবাদ জানাচ্ছেন। আবার অনেকেই প্রশ্নও করছেন অভিনয়ে কী আর থাকা হবে না নিয়মিত।

তাদের জন্যই তিতানের জবাব এমন ‘ইচ্ছে ছিলো একটি মনের মতো চাকুরী করার। শুরু করেছি জীবনের অন্য ধারাপাতের যাত্রা। বেশ ভালো লাগছে জীবনের নতুন এই দুনিয়া। সবাই বেশ উৎসাহ দিচ্ছে, আমিও বেশ আন্তরিকতা নিয়ে কাজ করছি। সকাল নয়টা টু ছয়টা, এক অন্যরকম শৃঙ্খলিত জীবন। তবে এটা সত্যি অভিনয়ের যে নেশা আমার রক্তে আছে সেটা আসলে ছাড়া যাবে না। অভিনয়ের মধ্যে আমি অন্যরকম সুখ পাই। তাই অভিনয় করবো। চাকুরীর পাশাপাশি চরিত্র, গল্প আমার জন্য মানানসই হলে সময় মিলিয়ে অবশ্যই অভিনয় করবো। কারণ আমার যারা দর্শক আছেন তাদের জন্য হলেও অভিনয়ে থাকতে চাই আমি। এই মুহুর্তে আমার বাবা মা ভাই বোন আমাকে নিয়ে গর্বিত, এটাও আমার অনেক ভালোলাগার।’ এদিকে এরইমধ্যে তিতান চৌধুরী নাহিয়ান খানের পরিচালনায় ‘গল্পটি সাধারন নয়’র কাজ শেষ করেছেন। এটি একটি স্বল্পদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। এই চলচ্চিত্রের গল্প তাকে ঘিরেই আবর্তিত হয়েছে।