‘ঘুরেফিরে একইমুখ, একই গল্প’

রুহুল আমিন ভূঁইয়া: মডেলিং জগতের পরিচিত মুখ ফারিয়া শাহরিন। ২০০৭ সালে ‘লাক্স-চ্যানেল আই সুপারস্টার’ প্রতিযোগিতার মাধ্যমে শোবিজে পথচলা। মডেলিং ও অভিনয়ে সুনাম করেছেন নিজ গুণে। বাংলালিংকের একটি বিজ্ঞাপনে অংশ নিয়ে সবার নজরে আসেন ফারিয়া। সামিয়া জামান পরিচালিত ‘আকাশ কত দূরে’ চলচ্চিত্রে ও অসংখ্য টিভি নাটকে অভিনয় করেছেন ফারিয়া। সম্প্রতি মালয়েশিয়ার এশিয়া প্যাসিফিক ইউনিভার্সিটি থেকে মিডিয়া মার্কেটিংয়ে অনার্স সম্পন্ন করে দেশে ফিরেছেন।

এখন তিনি দেশেই থাকবেন। নিয়মিত কাজ করবেন বলেও জানান। অবশ্য এরই মধ্যে তিনি একটি কাজও করেছেন। রোববার (১৩ আক্টেবার) দিনব্যাপী বিএফডিসির তিন নম্বর ফ্লোরে একটি বিজ্ঞাপনের শুটিংয়ে অংশ নেন ফারিয়া। নির্মাতা রানা মাসুদের পরিচালনায় একটি বহুজাতিক প্রতিষ্ঠানের (এসকেবি) কুক ওয়্যারের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছেন।

দুই বছর পর বিজ্ঞাপনচিত্রে কাজ করলেন। বিজ্ঞাপনটি নিয়ে বলুন-‘অভিনয়ের চেয়ে বিজ্ঞাপনে কাজ করতেই আমি বেশি স্বাচ্ছন্দ্যবোধ করি। আমাকে কিন্তু দর্শক বিজ্ঞাপনে কাজের মধ্য দিয়েই বেশি চিনেছেন, জেনেছেন। তা ছাড়া বিজ্ঞাপনে কাজ করলে দর্শকের কাছে খুব তাড়াতাড়ি পৌঁছানো যায়। এর আগে রানা মাসুদ ভাইয়ের নির্দেশনায় মীনা বাজারের বিজ্ঞাপনে মডেল হিসেবে কাজ করেছিলাম। যে কারণে তার কাজের প্রতি আমার আস্থা আছে। তাই আবারো তার নির্দেশনায় কাজ করেছি। সব মিলিয়ে খুবই ভালো একটি কাজ হয়েছে। বিজ্ঞাপনটি নিয়ে আমি আশাবাদী।’

এই দীর্ঘ বিরতির কারন কি? ‘পড়ালেখার জন্য মালয়েশিয়া ছিলাম তিন বছর যার কারনে এই বিরতি। আগষ্টের প্রথম সপ্তাহে অনার্স শেষ করে দেশে আসলাম। এখন দেশেই থাকব। এখন নিয়মিত কাজ করতে চাই। ভালো কাজ পেলে আমাকে নিয়মিত সবাই পাবেন। তবে তিন বছরের বিরতি থাকলেও মাঝে মাঝে দেশে এসেছি তখন কিছু কাজ করেছিলাম। তবে ইচ্ছে ছিল একেবারে দেশে ফিরে পুরোদমে ব্যস্ত হবো।

তবে ব্যস্ত হলেও সেটা মানসম্মত কাজ হতে হবে। বিজ্ঞাপনে কাজ করতে ইনজয় করি। বিজ্ঞাপন দিয়ে তারাতারি দর্শকদের কাছে যাওয়া যায়। বিজ্ঞাপন বেশি করতে চাই। তবে তাঁর সমসাময়িকদের তুলনায় ফারিয়ার কাজের সংখ্যা একেবারেই কম। জানান, ভালো গল্প ও পরিচালক পেলে নাটকেও নিয়মিত কাজ করবেন।’

শোবিজের অনেকেই ওয়েব সিরিজে কাজ করছেন। গল্প পরিচালক ভালো হলে ফারিয়ারও আপওি নেই। ২০১৪ সালে ‘আকাশ কত দূরে’ সিনেমার মাধ্যমে বড় পর্দায় অভিষেক হয় ফারিয়া। এরপর চলচ্চিত্রে আর কাজ করেননি। কেন কাজ করেননি জানতে চাইলে ফারিয়া বলেন, ‘ভালো গল্প পাইনি তাই কাজ করা হয়নি। ইচ্ছে আছে কাজ করার। সিনেমায় কাজ করতে আগ্রহী। ভালো গল্প পেলে কাজ করব।’

এখনকার নাটক কেমন হচ্ছে? ‘ঘুরেফিরে একইমুখ, একই গল্প। তাছাড়া বিজ্ঞাপন যন্ত্রণা। বেশির ভাগ নাটকের গল্প একই তাছাড়া ইচ্ছে মতো যা তা করা হচ্ছে। ঘুরেফিরে তিন-চার জন মুখ দেখতে দেখতে দর্শক বিরক্ত। নতুনদেরও কাজের সুযোগ দিতে হবে। এই সমস্যা গুলো সমাধান করলে মানুষ নাটক দেখবে। ফারিয়া কোনো অভিনেত্রীকে নিজের প্রতিদ্বন্দ্বী মনে করেন না। সবার কাছ থেকে শেখার চেষ্টা করেন। আগামী ২১ সালে ফারিয়া বিয়ের পিড়িতে বসবেন। জানান, সিনেমায় নায়ক হিসেবে আরিফিন শুভর বিপরীতে অভিনয় করতে চান।

অনেক চরিত্রেই তো অভিনয় করেছেন, ভবিষ্যতে কোন ধরনের চরিত্রে কাজ করতে চান? এমন প্রশ্নের জবাবে ফারিয়া বলেন, ‘গরীব খেটে খাওয়া গ্রামের মেয়ের চরিত্রে অভিনয় করতে চাই।’ কেন? এ বিষয়ে ফারিয়ার বক্তব্য হলো, ‘আমি এমন চরিত্রে সব সময় কাজ করতে চাই যেখানে আমি ব্যক্তি ফারিয়া নই। অভিনয়কে যথাযথভাবে ফুটিয়ে তুলতে চ্যালেঞ্জিং চরিত্রগুলো আমার বেশি প্রিয়। নিজেকে নতুন করে আবিস্কার করতে চাই।’