বিএনপি রেল বন্ধের আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত নিয়েছিল : প্রধানমন্ত্রী

ঢাকা: রেলওয়েকে লাভজনক খাতে পরিণত করার ওপর গুরুত্বারোপ করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, সরকার পুরো দেশকে রেল যোগাযোগ নেটওয়ার্কের আওতায় আনার চেষ্টা করছে।

তিনি বলেন, ‘যারা অলাভজনক বলে রেল পথগুলো একেবারে বন্ধ করে দিতে চেয়েছিল, তাদেরকে দেখিয়ে দিতে চাই যে এগুলোও লাভজনক হতে পারে। পাশাপাশি, রেলপথের আধুনিকায়নের মাধ্যমে পণ্য পরিবহণসহ মানুষের জন্য বিভিন্ন ধরণের সুযোগ-সুবিধা তৈরি করা যায়।’

বুধবার গণভবন থেকে ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে কুড়িগ্রাম-ঢাকা রুটের ‘কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস’ এবং রংপুর এক্সপ্রেস ও লালমনি এক্সপ্রেস ট্রেনের নতুন বগি সংযোজনের উদ্বোধনকালে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন।

শেখ হাসিনা বলেন, দেশের সাধারণ ও মধ্যবিত্ত মানুষের মধ্যে রেল অনেক জনপ্রিয়। কিন্তু বিএনপি সরকার এটা লাভজনক হবে না বলে আন্তর্জাতিক সংগঠনগুলোর কথা মতো পরিকল্পিতভাবে রেলপথগুলো বন্ধ করে দেয়।

‘আমি মনে করি এটি দেশের জন্য আত্মঘাতী সিদ্ধান্ত ছিল। কারণ দেশের সাধারণ মানুষ তাদের যোগাযোগের জন্য রেলকেই বেছে নেয়। একটি দেশের জন্য রেল, পানি, আকাশ ও সড়ক যোগাযোগ ব্যবস্থা থাকা খুবই প্রয়োজন,’ যোগ করেন তিনি।

প্রধানমন্ত্রী জানান, তার সরকার বরিশালসহ প্রতিটি বিভাগে রেল যোগাযোগ ব্যবস্থা স্থাপনের জন্য একটি বিশাল কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। ‘আমরা অনেকগুলি নতুন রেল পথ নির্মাণ করেছি এবং বহু পুরাতন রেললাইন মেরামত করেছি।’

সরকার প্রধান বলেন, ‘আমাদের লক্ষ্য হলো পুরো বাংলাদেশকে, এমনকি দেশের দক্ষিণাংশকে রেলওয়ে নেটওয়ার্কের মধ্যে আনা। সরকার বরিশাল, বাগেরহাটের মংলা ও পটুয়াখালীর পাইরা বন্দর পর্যন্ত রেলপথ সম্প্রসারণ করবে। আমরা দ্রুত রেলপথ নির্মাণের পরিকল্পনা নিয়েছি।’