চলচ্চিত্রের স্বার্থে নির্বাচন করছি: আলেকজান্ডার

বিনোদন প্রতিবেদক: প্রথম ছবিতেই জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার নিজের থলিতে ভরেছেন ঢাকাই ছবির অন্যতম আলোচিত নায়ক আলেকজান্ডার বো। সেটা ১৯৯৫ সালের কথা। শহিদুল ইসলাম খোকনের সুপারহিট ছবি ‘ম্যাডাম ফুলি’র মাধ্যমেই চলচ্চিত্রে অভিষেক হয় তার। এ ছবিতে অভিনয় করে পান জাতীয় পুরস্কার। এরপর শুরু হয় চলচ্চিত্রে তার দাপুটে যাত্রা। মার্শাল আর্টে দক্ষ হওয়ায় ছবিতে তার দুর্দান্ত অ্যাকশন দর্শকদের মনে পড়ে। এ অভিনেতা এখন অভিনয়ের চেয়ে ব্যবসায় মনোযোগী বেশি।

তবে আলেকজান্ডার ব্যবসা করলেও মন পড়ে থাকে চলচ্চিত্রে। তাই আসন্ন শিল্পী সমতিরি নির্বাচনে কার্যনির্বাহী সদস্য পদে মিশা-জায়েদ প্যানেল থেকে নির্বাচন করছেন। বলেন, শুধু চলচ্চিত্রের স্বার্থেই কিন্তু এবার নির্বাচন করছি। গত দুই বছর মিশা-জায়েদ প্যানেল অনেক চমক দিয়েছে। তাই তাদের পাশে থেকে শিল্পীদের স্বার্থ রক্ষায় সামিল হতে চাই। তাছাড়া এখানে অনেক সমস্যা আছে। সেগুলো দূর করতে হলে আমাদেরই এগিয়ে আসতে হবে। তাই নির্বাচন করছি।’

নিজের নির্বাচনী ভাবনা নিয়ে আলেকজান্ডার বো বলেন, ‘কয়েক বছর আগে রুবেল ভাই যখন সেক্রেটারি ছিলেন তখন আমি কার্যকরী সদস্য ছিলাম। তখন অনেক কাজ করেছিলাম। যারা ওই সময়টা ছিলেন তারা সব জানেন। ওই সময় প্রচুর শুটিংয়ে ব্যস্ত থাকতাম। এর ফাঁকেই কাজ করেছি। এবার নতুন-পুরনো সবাই নির্বাচন করছেন। সবাই পরিশ্রমও করছে ইন্ডাস্ট্রি সচল রাখতে। সবার জন্য শুভকামনা।’

গত ৫ অক্টোবর ২০১৯-২১ মেয়াদের শিল্পী সমিতির আসন্ন নির্বাচনের খসড়া তালিকা প্রকাশ করা হয়। তালিকা থেকে জানা যায়, সভাপতি পদে লড়াই করছেন চিত্রনায়িকা মৌসুমী ও খলনায়ক মিশা সওদাগর। সহ-সভাপতির দুটি পদে প্রার্থী হয়েছেন মনোয়ার হোসেন ডিপজল, রুবেল ও নানা শাহ। সাধারণ সম্পাদক পদে জায়েদ খানের প্রতিদ্বন্দ্বী ইলিয়াস কোবরা। সহ-সাধারণ সম্পাদক পদে লড়ছেন আরমান ও সাংকো পাঞ্জা।

সাংগঠনিক সম্পাদক পদে অভিনেতা সুব্রত’র বিপরীতে কোনো প্রার্থী নেই। আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক পদে লড়ছেন নূর মোহাম্মদ খালেদ আহমেদ ও চিত্রনায়ক ইমন। দপ্তর ও প্রচার সম্পাদক পদে একাই রয়েছেন জ্যাকি আলমগীর। সংস্কৃতি ও ক্রীড়া সম্পাদক পদে লড়বেন জাকির হোসেন ও ডন। কোষাধ্যক্ষ পদে অভিনেতা ফরহাদের কোনো প্রতিদ্বন্দ্বী নেই। অর্থাৎ সুব্রত জ্যাকি আলমগীর এবং ফরহাদ বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।

এবারের নির্বাচনে কার্যকরী পরিষদ সদস্যের ১১টি পদের জন্য প্রার্থী হয়েছেন ১৪ জন। তারা হলেন- অঞ্জনা সুলতানা, রোজিনা, অরুণা বিশ্বাস, আলীরাজ, আফজাল শরীফ, বাপ্পারাজ, রঞ্জিতা, আসিফ ইকবাল, আলেকজান্ডার বো, জেসমিন, জয় চৌধুরী, নাসরিন, মারুফ আকিব ও শামীম খান (চিকন আলী)।