দুই মেয়র ও কাউন্সিলরদের নগরীর মশা নিধনে মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ প্রধানমন্ত্রীর

ঢাকার নবনির্বাচিত দুই মেয়র ও কাউন্সিলরদের নগরীর মশা নিধনে মনোযোগী হওয়ার পরামর্শ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেন, মশা আপনার ভোট যেন খেয়ে না ফেলে সেদিকে দৃষ্টি দিতে হবে। মশা ক্ষুদ্র হলেও অনেক শক্তিশালী- এটা মাথায় রাখতে হবে। সেদিকে আপনারা একটু বিশেষভাবে নজর দেবেন, যেন সঠিকভাবে মশা নিধন হয়। গতকাল বৃহস্পতিবার প্রধানমন্ত্রী কার্যালয়ের শাপলা মিলনায়তনে নবনির্বাচিত এসব জনপ্রতিনিধির শপথ অনুষ্ঠানের পর তাদের প্রতি দিকনির্দেশনামূলক বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

সকাল সাড়ে ১০টায় ঢাকা উত্তরের মেয়র আতিকুল ইসলাম ও দক্ষিণের মেয়র শেখ ফজলে নূর তাপসসহ কাউন্সিলররা শপথ নেন। প্রধানমন্ত্রী দুই মেয়রকে এবং স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম দুই সিটির সাধারণ ও সংরক্ষিত ওয়ার্ডের নির্বাচিত ১৭২ জন কাউন্সিলরকে শপথ পাঠ করান। মঞ্চে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে ছিলেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের, স্থানীয় সরকারমন্ত্রী তাজুল ইসলাম ও নবনিযুক্ত দুই মেয়র। এ ছাড়া আওয়ামী লীগের শীর্ষনেতা, সরকারের মন্ত্রী, প্রতিমন্ত্রী ও ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

নাগরিক দুর্ভোগ লাঘবে মেয়রদের সতর্ক থাকার আহ্বান জানিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, মাঝে মাঝে অনেকগুলো ঝামেলা চলে আসে। এখন যেমন করোনা ভাইরাস; এর আগে এসেছিল ডেঙ্গু। এখন থেকে এই (এডিস) মশা নিয়ন্ত্রণের ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি বলেন, জনগণের কাছে আপনারা ওয়াদাবদ্ধ। আপনারা যে শপথ নিয়েছেন তা মনে রেখে নির্বাচিত প্রতিনিধি হিসেবে যারা আপনাকে ভোট দিয়েছে এবং যারা দেয়নি অর্থাৎ এলাকাবাসী সবার জন্য সমানভাবে কাজ করতে হবে। আপনি যখন নির্বাচিত হয়ে এসেছেন তা হলে আপনি সবার। সেটি মাথায় রেখেই সার্বিক উন্নয়নের জন্য কাজ করতে হবে।

দুর্নীতির বিরুদ্ধে কঠোর হুশিয়ারি দিয়ে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের উন্নয়নে অনেক বড় বড় প্রকল্প বাস্তবায়ন করছি। আমি চাই এসব প্রকল্পে যেন কোনো দুর্নীতি না হয়, অনিয়ম না হয়। আমি কিন্তু কাউকে ছাড়ব না; এটা হলো বাস্তবতা। তিনি বলেন, একটা নির্দিষ্ট সময়ের জন্য নির্বাচিত হই। এই সময়ের মধ্যে যে কাজগুলো করব বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছি সেগুলো আমি সম্পন্ন করতে চাই। সে ক্ষেত্রে কেউ যদি প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে বা কোনো রকম দুর্নীতি করে বা কোনো রকম নয়-ছয় করে, তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে। সেখানে কোনো মুখ চাওয়া-চাওয়ি হবে না।

শেখ হাসিনা বলেন, জঙ্গিবাদ, সন্ত্রাস, মাদক ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান চলছে, চলতে থাকবে। সেখানে আপনাদের সহযোগিতা চাই। সমাজের এই ক্ষতগুলো থেকে জাতিকে মুক্তি দিতে হবে। না হয় আপনাদের সন্তান, ভবিষ্যৎ প্রজন্ম ক্ষতিগ্রস্ত হবে।

গত ১ ফেব্রুয়ারি ডিএসসিসি ও ডিএনসিসির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। তবে নবনির্বাচিত মেয়র ও কাউন্সিলরদের দায়িত্ব নিতে মে মাস পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে।