ভারতে বিমানে আগুন, ওড়ার ১০ মিনিটের মধ্যে অবতরণ

ভারতে বিমানে আগুন, ওড়ার ১০ মিনিটের মধ্যে অবতরণ

ঢাকা: ভারতের আসামের গুয়াহাটি থেকে কলকাতাগামী গো-এয়ারের একটি বিমান ওড়ার দশ মিনিটের মধ্যেই রানওয়েতে ফিরল। ইঞ্জিনের গোলযোগের কারণে বিমানের লেজের অংশে আগুন ধরে গিয়েছিল। এতে করে গো-এয়ারের এয়ারবাস (এ-৩২০ নিও) বিমানের যাত্রীদের মধ্যে আগুন আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

অসামরিক বিমান নিয়ন্ত্রক সংস্থার (ডিজিসিএ) জানিয়েছে, যাত্রীরা ইঞ্জিনের টেইল-পাইপে (পেছনের অংশে) আগুন লক্ষ্য করেন। এরপর তারা আতঙ্কিত হয়ে অনবোর্ড কর্মীদের জানালে ফের গুয়াহাটিতে অবতরণ করে ওই বিমান। আরও জানা গেছে, ১৩২ জন যাত্রীসহ মঙ্গলবার যাত্রা শুরু করা ওই বিমানকে নামতেই হতো। কারণ, ইঞ্জিন বিকল হয়ে তার লেজের দিকে আগুন লাগার কারণে ইঞ্জিন থেকে বিকট আওয়াজ বেরোচ্ছিল এবং অস্বাভাবিকভাবে কাঁপছিল সেই বিমান।

গো-এয়ারের পক্ষ থেকে এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ‘যান্ত্রিক ত্রুটির কারণে সেই বিমান ওড়ার কিছুক্ষণের মধ্যে গুয়াহাটি ফিরে এসেছিল। সেখানেই আমাদের ইঞ্জিনিয়াররা ত্রুটি ঠিক করে ফের কলকাতার উদ্দেশ্যে রওনা দেয়। এরপর নিরাপদে যাত্রীদের গন্তব্যে পৌঁছে দেয়া গেছে। আপাতত গো-এয়ারের ওই বিমানকে উড়তে না করেছে ডিজিসিএ। গত রোববার মুম্বাই থেকে ভারতের পাঞ্জাব ও হরিয়ানা রাজ্যের রাজধানী চন্ডীগড়গামী একই বিমানে যান্ত্রিক গোলযোগ দেখা গিয়েছিল। দীপাবলির পর থেকে গো-এয়ার আর ইন্ডিগোর এই এয়ার বাসে যান্ত্রিক গোলযোগ দেখা যাচ্ছে। মূলত প্রকট আর হুইটনি পাওয়ার ইঞ্জিনের জন্য এ সমস্যা বলে বিশেষজ্ঞরা বলেছেন।

আমেরিকার বেসামরিক বিমান নিয়ন্ত্রক সংস্থা (এফএএ) অবিলম্বে ইঞ্জিনের ভোল বদলে ফেলতে সব এয়ার ক্র্যাফটকে নির্দেশ দিয়েছে। সেই পথে হেঁটেছে ডিজিসিএ। এ ধরনের ইঞ্জিন আমূল বদলে ফেলতে আগামী বছরের ৩১ জানুয়ারি অবধি সময়সীমা ধার্য করে দিয়েছে ডিজিসিএ। নির্দেশ পৌঁছেছে গো-এয়ার ও ইন্ডিগোর কাছে। খবর: এনডিটিভি